ভাইরাল হওয়া ভিডিও ও তার পর ডিসির দেয়া বক্তব্যের ভিডিও ক্ষমা সুন্দর চোখে দেখার অনুরুধ

0
8814

জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের ম্যাসেঞ্জারে ভাইরাল হয়েছে। খন্দকার সোহেল আহমেদ নামে একটি আইডিতে ভিডিওটি পোষ্ট দেয়া হয়েছে।

৪ মিনিট ৫৮ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে দেখা যায়, জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর তার অফিসের গোপ নীয় কক্ষের বেডরুমে একজন নারীকে জড়িয়ে ধরে চু  মুখাচ্ছেন, ব্যাপক আলোকিত ওই কক্ষের ইলেট্রিক লাইটের সুইচ অফ করছেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিও ও জুম্মার পর সার্কিট হাউজে দেয়া ডিসির বক্তব্যের ভিডিও দেয়া হয়েছে নিউজের শেষের দিকে

ওই নারীর শরীরের বিভিন্নস্থানে হাত বুলিয়ে আদর করছেন। এক পর্যায়ে ওই নারী জেলা প্রশাসকের ওই কক্ষের খাটে উঠেন। একজন নারী র সাথে জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর তার অফিস কক্ষের পাশের একটি বেডরুমে অ ন্তর ঙ্গমহূর্তে রয়েছেন।

ফুটেজে দেখা গেছে সিএ এম-২ ক্যামেরায় এটি ধারন করা হয়েছে। ওই নারী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কোনো কর্মচারী না বাইরে থেকে সেখানে ঢোকেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। জানা গেছে, জেলা পর্যায়ের সর্বোচ্চ পদধারী এই সরকারি কর্মকর্তা তার অফিসেই একজন নারীর সাথে অবৈধ মেলামেশার এই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ‘খন্দকার সোহেল আহমেদ’ নামের একটি পেজ থেকে আপলোড হয় গত ১৫ আগস্ট বিকেলের দিকে।

ফেসবুক আইডি থেকে এটি ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে ব্যাপকহারে নজরে আসতে থাকে ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারীদের কাছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তুমুল তোলপাড় এবং ধিক্কা রের ঝড় ওঠে। শুক্রবার ভোররাত থেকে রহস্যজনক কারণে ওই আইডির ওয়াল থেকে ভিডিও লিঙ্কটি সরিয়ে নেওয়ায় সন্দেহ আরো দানা বেঁধে উঠেছে

নিজ অফিস কক্ষে একজন নারীর সাথে জেলা প্রশাসকের অবৈ ধমেলা মেশার এই ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ায় বিভিন্ন সরকারি গোয়েন্দা সংস্থার কর্তাব্যক্তিদেরও এ নিয়ে বেশ তৎপর থাকতে দেখা যাচ্ছে। একাধিক সূত্রে জানা গেছে, জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর জামালপুরে যোগদান করেছেন ২০১৭ সালের ২৭ মে

যোগদানের কিছুদিন পর থেকেই তিনি তার অফিসের কক্ষের পাশে ছোট্ট একটি কক্ষে ধূমপা নও ব্যক্তিগত সরকারি গোপনীয় বৈঠকের জন্য কক্ষটি ব্যবহার করে আসছেন। সম্প্রতি ওই কক্ষে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য একটি খাট বসানো হয়েছে। তাতে বিশ্রাম নেওয়ার মতো বালিশ, চাদর সবকিছুই আছে

সম্প্রতি ওই কক্ষে একাধিক নারীর যাতায়াতকে কেন্দ্র করে গোটা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মাঝে দীর্ঘদিন ধরে নানা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত সেখানে একজন নারীর সাথে জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের অবৈধ মেলামেশার ভিডিওটি ফেসবুকে, ফেসবুক থেকে ডাউনলোড করে মেসেঞ্জারে, মোবাইল থেকে মোবাইলে এবং ইমেইেলে ছড়িয়ে পড়ায় আগে শোনা সেই গুঞ্জন শেষ পর্যন্ত বাস্তবে রূপ নিয়েছে বলে মন্তব্য করছেন অনেকে

এ ব্যাপারে জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জারে দেয়া ভিডিও তিনি দেখেছেন। সেটি ফেইক আইডি দাবি করে তিনি বলেন, এসব সাজানো ঘটনা। ওই ফুটেজ তার নয় দাবি করে তিনি বলেন, ভিডিওটি এখন আর দেখা যায় না। ভিডিও ভাইরাল হবার ঘটনা জানতে শুক্রবার সকালে জেলা প্রশাসকের বাসভবনে যান ইলেক্টনিক এবং প্রিন্ট মিডিয়ার একদল সাংবাদিক

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here